সর্বশেষ

'নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের বাধাহীন সরবরাহে জোর দিয়েছে বাংলাদেশ'

প্রকাশ :


২৪খবরবিডি: 'তিস্তা ও অন্যান্য নদীর পানি বণ্টন চুক্তির সমাপ্তিসহ বাণিজ্য বাধা দূর করা এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের বাধাহীন সরবরাহের ওপর জোর দিয়েছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার ওপর জোর দিয়েছে ভারত। শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশ ও ভারতের পররাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের বৈঠকে উভয়পক্ষ নিজস্ব অবস্থান তুলে ধরেন। ঢাকার পক্ষে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন এবং দিল্লির পক্ষে দেশটির পররাষ্ট্রসচিব বিনয় কোয়াত্রা বৈঠকে নেতৃত্ব দেন।'
 

'প্রায় আট মাসের বিরতিতে দ্বিতীয় মেয়াদে হওয়া সভায় উভয়পক্ষ দুই দেশের বৃহত্তর সমৃদ্ধির জন্য সহযোগিতা আরও গভীর করার বিষয়ে জোর দেন।বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বৈঠকে তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি ও অন্যান্য নদীর পানি বণ্টনের বিষয়টি উত্থাপন করেন। এছাড়া বাণিজ্য বাধা দূর করা এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের বাধাহীন সরবরাহের ওপর জোর দেন। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিনয় কোয়াত্রা বাংলাদেশকে বিশ্বস্ত প্রতিবেশী হিসেবে অভিহিত করেন এবং দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেন। উভয় পররাষ্ট্রসচিব বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং চলতি বছরের অগ্রগতি বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর দ্বারা সংযোগ এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য সম্প্রতি কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধনের কথা উল্লেখ করে মোমেন-কোয়াত্রা বলেন, এ ধরন ের সহযোগিতা শক্তিশালী দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বাস্তব ফলাফল প্রতিফলিত করে। দুই পররাষ্ট্রসচিব উন্নয়ন, ব্যবসা-বাণিজ্য, আঞ্চলিক সংযোগ, আঞ্চলিক বিদ্যুৎ সংযোগ, নিরাপত্তা ও পানি সংক্রান্ত সমস্যা, কনস্যুলার ও সাংস্কৃতিক বিষয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে সহযোগিতা জোরদারের ওপর জোর দেন। এছাড়া উভয়পক্ষ পুনর্ব্যক্ত করেছে যে, দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী শান্তিপূর্ণ সীমান্ত ব্যবস্থা বজায় রাখত সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।'


'বাংলাদেশের পররাষ্ট্রসচিব ভারতের পররাষ্ট্রসচিবকে দুই দেশের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ আরও গভীর ও প্রসারিত করার অনুরোধ জানান। রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ভারতের সহযোগিতা চান মাসুদ বিন মোমেন। ভারতের পররাষ্ট্রসচিব সম্প্রতি অনুষ্ঠিত গ্লোবাল সাউথ এবং জি-২০ এর ভার্চুয়াল বৈঠকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণের প্রশংসা করেন। তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক আরও জোরদার করতে নেতৃত্বের অঙ্গীকারের আশ্বাস দেন। পররাষ্ট্রসচিব

'নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের বাধাহীন সরবরাহে জোর দিয়েছে বাংলাদেশ'

পর্যায়ের বৈঠক নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, উভয়পক্ষ সীমান্ত ও নিরাপত্তা, বাণিজ্য, বাণিজ্য ও সংযোগ, পানি, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা, জনগণের মধ্যে জনগণের সম্পর্ক এবং বাংলাদেশে উন্নয়ন সহযোগিতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা করেছে। এছাড়া উভয়পক্ষ উপ-আঞ্চলিক, আঞ্চলিক এবং বহুপাক্ষিক বিষয়েও মতবিনিময় করেছে। পাশাপাশি পরবর্তী সভা ঢাকায় করার বিষয়ে উভয়পক্ষ সম্মত হয়েছে।'

Share

আরো খবর


সর্বাধিক পঠিত